সমবয়সী মহিলাকে বিয়ে করলে যে ৪ টি সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়, জানুন বিশদে

754
আরোও পড়ুন :

ছবি : প্রতীকী

বেশ কয়েক যুগ আগে স্বামী এবং স্ত্রীর বয়সের মধ্যে অনেকটাই পার্থক্য থাকতো। প্রায় অর্ধেক বয়সের দুজন মানুষ থাকতে শুরু করতেন একই ছাদের তলায়। তবে সেযুগ এখন আর নেই। আধুনিক ছেলেমেয়েরা কাজের জায়গায় এবং একসঙ্গে পড়াশোনা করতে করতে ধীরে ধীরে মেলামেশা তারপর তা পরিণত হয় ভালোবাসা এবং তারপর বিয়ে। বাড়ি থেকেও খুব একটা আপত্তি হয়না সমবয়সী ছেলেমেয়ের বিয়েতে। তবে এইরকম বৈবাহিক সম্পর্কে পরবর্তীকালে কিছু অসুবিধা কিন্তু আসতেই পারে যেগুলো বেশ সিরিয়াস। আসুন সেগুলো একবার জেনে নিই,

প্রথম যে সমস্যাটির সমবয়সী দম্পতিরা মুখোমুখি হন তা হল বোঝাপড়া। সমবয়সী একজন নারী এবং পুরুষের মধ্যে নারীর বুদ্ধিমত্তা কিছুটা বেশিই থাকে। সেখানে সংসারে শুরু হয়ে যায় তার দাদাগিরি যা কখনো কখনো কোনো পুরুষ মেনে নিতে পারেন না। ফলে সেখানে শুরু হয় অশান্তি।

সমবয়সী দম্পতির মধ্যে আরো একটি বিশেষ অসুবিধা হলো যৌন মিলনে অনিচ্ছা। এই সমস্যা খুব বেশি বয়সের পার্থক্য থাকলেও দেখা যায় আবার সমবয়সীদের মধ্যেও আজকাল প্রায়ই এই সমস্যা দেখা দিতে শুরু করেছে। একজন মহিলা দীর্ঘসময় ধরেই কোনোরকম সঙ্গম ছাড়া থাকতে পারলেও একজন পুরুষের পক্ষে তা বেশ অসুবিধাজনক এবং এখানে যদি পরস্পরের মধ্যে বোঝাপড়া ঠিকঠাক না হয়, তাহলে এই সমস্যা অনেক দূর অবধি গড়াতে পারে।

সমবয়সী দম্পতিদের মধ্যে অন্য একটি সমস্যা হল একজন মহিলা এবং পুরুষ যদি সমবয়সী হন এবং তারা ২৮ বা ২৯ এর পর বিয়ে করেন সেক্ষেত্রে খুব বেশি দিন অপেক্ষা করলে মেয়েটির ক্ষেত্রে সন্তানধারনে কিছু সমস্যা দেখা দিতে পারে। তখন স্বামী স্ত্রীর সম্পর্কের মধ্যে চলে আসে ভাঙন।

আর এই সব নানারকম সমস্যার ফলে আসে ডিপ্রেশন, ভুল বোঝাবুঝি, অশান্তি যা পরে ডিভোর্স অবধি গড়ায়। ফলে সমবয়সী কাউকে বিয়ে করার আগে উপরিউক্ত সমস্যাগুলি সম্পর্কে একবার ভেবে নেবেন।

আরোও পড়ুন :