হোয়্যাটসঅ্যাপ চ্যাট ডিলিট করেও পার পেলেন না রিয়া, পড়ুন চাঞ্চল্যকর তথ্য

837
- Advertisement -

Image Source : Google

বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই যাবতীয় সন্দেহের তীর তাঁর বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীর দিকে। সুশান্তের টাকা পয়সা, সম্পত্তি লোভেই সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন রিয়া এমনটা বিশ্বাস করেন দেশের অসংখ্য মানুষ। তবে সুশান্তের বাবা কেকে সিংয়ের অভিযোগের ওপর ভিত্তি করে ইতিমধ্যে রিয়া এবং তাঁর পরিবারকে তিনবার জিজ্ঞাসাবাদ করেছে ইডি। তবে তারা সন্তুষ্ট হতে পারেনি। রিয়া কোনভাবেই সাহায্য করছেনা তদন্তে এমনটাই জানিয়েছে ইডি।

- Advertisement -

আর এবার তদন্তের স্বার্থেই রিয়ার পরিবারের সমস্ত গ্যাজেটস বাজেয়াপ্ত করলো ইডি। রিয়ার ফোন, তাঁর ভাই সৌভিকের ফোন, রিয়ার বাবার ফোন, দুটি আইপ্যাড এবং দুটি ল্যাপটপ ইতিমধ্যেই বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এবার এই সমস্ত গ্যাজেটসের ফরেনসিক রিপোর্ট করে তদন্ত করবে ইডি। ইতিমধ্যেই তারা জানতে পেরেছে আগের বছর নভেম্বর মাসে সুশান্তের একটি এফডি ভাঙেন রিয়া যার পরিমান ছিল ৯ কোটি টাকা।

রিয়া সুশান্তের সঙ্গে কিছু হোয়্যাটসঅ্যাপ চ্যাট ডিলিটও করেছেন। তবে তিনি ঠিক কোন কোন কথাগুলি ডিলিট করেছেন তা উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে ইডি। রিয়ার ফোন বাজেয়াপ্ত করার পরই ইডি কর্তারা লক্ষ্য করেন Vividrage Rhealityx Pvt. Ltd. in- এর নাম প্রকাশ্যে আসার পরই মুছে ফেলা হয় হোয়্যাটসঅ্যাপ চ্যাটের কিছু অংশ। ওই সংস্থার আইপি অ্যাড্রেস ট্র্যাক করে দেখা গিয়েছে নভি মুম্বইয়ে এক বছরের মধ্যে ১৭ বার জায়গা বদল করা হয়েছে।

জানা গেছে আগের বছরে সুশান্তের বাবা কেকে সিং রিয়াকে ম্যাসেজ করে বলেছিলেন ফোন করতে। ছেলের বন্ধু একসাথে রহেকে শুনে তিনি কথা বলতে চেয়েছিলেন রিয়ার সঙ্গে তবে রিয়া ফোন করা তো দূর তাঁকে ব্লক করে দেন। এরপর সুশান্তের বাবা বিজনেস ম্যানেজার শ্রুতি মোদির সঙ্গে কথা বলেন তবে তিনিও বিশেষ পাত্তা দেননি তার কথায়।

আরোও পড়ুন :