পান পাতার এই গুনটি জানলে চমকে উঠবেন, না পড়লে মিস করবেন

342
- Advertisement -
ছবি : প্রতীকী

বাড়ির ঠাকুমা, ঠাকুরদা বা একটু বয়স্ক যেকোন সদস্যের মধ্যেই আমরা পান খাওয়ার অভ্যেস দেখি। নিয়ম করে পান সাজতে বসে যান তারা। এটা তাদের কাছে একটা নেশার জিনিস। গুটি গুটি পায়ে আমরাও গিয়ে দাঁড়িয়েছি কখনো কখনো। কারন পান খাওয়ার প্রতি আমাদের অনেকেরই একটা ইচ্ছা কাজ করতো। পান পাতার কিন্তু গুন অনেক। যেমন,

- Advertisement -

পানের রস হজমশক্তি বৃদ্ধি করে এবং অতিরিক্ত জল, বিষাক্ত পর্দাথ শরীর থেকে বের করে দেয়। শুধু তাই নয় এটি মেটাবলিজম বৃদ্ধি করে থাকে। এর ফাইবার কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে থাকে। আর এই সবকিছু ওজন হ্রাস করতে সাহায্য করে। তাছাড়া পান পাতায় রয়েছে গ্যাস্ট্রো প্রটেকটিভ , অ্যান্টি-ফ্লটুলেন্ট এবং কার্মিনেটিভ এজেন্ট যার কারণে পান চাবানোর সময় মুখে স্যালাইভা তৈরি করে। যা খাবার হজম করতে সাহায্য করে।

পলিফেনাল নামে এক ধরনের অ্যান্টি-ইনফ্লামমেটরি উপাদান রয়েছে পান পাতায়, যা প্রদাহ বা যন্ত্রণা কমাতে দারুন কাজে করে। এইজন্য অনেককে জয়েন্টের ব্যথার জন্য পানের রস সরবারহ করে।

পান পাতার অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি ইনফ্লামমেটরি উপাদান ঠাণ্ডা এবং ঠাণ্ডাজনিত সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। পান পাতা এবং মধু মিশিয়ে খাওয়ার অভ্যাস করুন এটি গলার ইনফেকশন রোধ করবে।

পান পাতায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। এর অক্সিডেটিভ উপাদান ক্ষত দ্রুত সারিয়ে তোলে। ক্ষত স্থানে কিছু পরিমাণ পান পাতার রস লাগিয়ে নিন। এরপর ব্যান্ডেজ করে বেঁধে রাখুন। এভাবে ২-৩দিন থাকুন। দেখবেন ক্ষত সেরে গেছে।

মুখের ভিতরের ব্যাকটেরিয়া মেরে ফেলে মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে পান পাতার বিকল্প নেই। পান পাতা চেবানোর সময় মুখে ভিতর স্যালাইভা উৎপাদন করে যা ওরাল ব্যাক্টেরিয়া রোধ করে এবং পিএইচ লেভেলের ভারসাম্য বজায় রাখে। আয়ুর্বেদ শাস্ত্র অনু‌যায়ী পান খেলে ক্যান্সারের মতো ভয়াবহ রোগকেও প্রতিহত করা ‌যায়।

আরোও পড়ুন :